blog

বাচ্চাদের ঘন ঘন ন্যাড়া করলে কি চুল ঘন হয়?

আমাদের অনেকেরই অভিজ্ঞতা আছে ছোটবেলা ঘন ঘন ন্যাড়া হওয়ার। এখনও বিশ্বাস করা হয় যে ঘন ঘন ন্যাড়া হলে চুল ঘন হয়, ভাল চুল গজায়। কিন্তু সত্যিই কি তাই? বিজ্ঞান আদৌ সেই কথা বলে তো! এবার ছোট ছেলে বা মেয়েকে ন্যাড়া করার আগে ভাল করে জেনে নিন এই ন্যাড়া করার সঙ্গে ভাল চুল গজানোর আদৌ কোনও সম্পর্ক আছে কিনা!

কেন ন্যাড়া হলে চুল ঘন হবে না

আমাদের চুলের ঘনত্ব, রঙ এই সব নির্ভর করে জিনের ওপর। আমাদের জিন বা বংশগতি ঠিক করে আমাদের চুল কেমন হবে। তাই আপনার বংশে যদি তাক পড়ার সমস্যা থাকে তাহলে আপনারও সেটা হতে পারে। আপনি চিকিৎসা করিয়ে সেটার প্রভাব কমাতে পারেন বা যাতে অনেক পরে হয় সেটার ব্যবস্থা করতে পারেন। কিন্তু এই সমস্যা থেকে একেবারে মুক্ত হতে পারবেন না। তাই আপনার বংশে যদি পাতলা, কম ঘন চুল থাকে তাহলে আপনারও সেরকম চুলই হবে।

বারবার ন্যাড়া হলেও কোনও বিশেষ পরিবর্তন আসবে না। জিন ছাড়াও আরেকটি বিষয় আমাদের মনে রাখতে হবে। আমাদের জন্মের সময় আমরা নির্দিষ্ট পরিমাণ হেয়ার ফলিকল নিয়ে জন্মাই। তার পরিমাণ প্রায় এক লক্ষের কাছাকাছি। আমাদের জন্মের পর এই হেয়ার ফলিকলের সংখ্যা খুব একটা আর পরিবর্তিত হয় না। এখন হেয়ার ফলিকলের সংখ্যাই যদি নির্দিষ্ট হয়, তাহলে বারবার ন্যাড়া হলেও নতুন চুল আসবে কোথা থেকে? আমাদের চুল তো এই হেয়ার ফলিকল থেকেই জন্মায়। তাই ন্যাড়া হয়ে শুধু শুধু চুল বড় আর ঘন হওয়ার আশা না করাই ভাল।

তবে চুল ছোট করা যায়

চুল ভাল রাখতে ন্যাড়া নয়, বরং চুল ছোট করার বা চুলে শেপ দেওয়ার কথাটা বিজ্ঞানসম্মত। আসলে খুব বড় চুল থাকলে অনেক সময় বেশি ঘষা লেগে ডগা ভাঙা, চুল ছেড়ার মতো সমস্যা হয়। অনেক সময় বড় চুল ভাল করে যত্ন নেওয়া যায় না। বেশি করে ময়লা জমতে শুরু করে খুব বড় চুলে। তাই আপনি যদি চুল একটু ছোট রাখেন তাহলে ঘাম বা ময়লা যেমন কম জমবে, তেমনই আবার ডগা ভাঙার মতো সমস্যাও কম হবে। তাই চুল ভাল রাখতে অল্প ছোট চুল রাখতে পারেন।

এবার আশা করি আর ন্যাড়া মাথা করিয়ে বাচ্চাদের রাখবেন না। চুল যদি ঘন হওয়ার থাকে তাহলে ভাল করে তেল বা ভাল শ্যাম্পু ব্যবহার করলেই হবে। সঙ্গে দরকার পুষ্টিকর খাবার। এই সবই ভাল চুলের গোঁড়ার কথা।

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *