blog

শীতকালে আপনার শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলুন।

শীত ইতিমধ্যে আমাদের উপর তার ভয়ানক রুক্ষতা এবং পীড়া দাবানলের মতো ছড়িয়ে দিয়েছে।আপনার ছোট্ট দেবদূতের মধ্যে যদি সর্দি–কাশির কোনও সামান্যতম লক্ষণও দেখা দেয়, তার জন্য আপনি সম্ভবত ইতিমধ্যে আপনার বিশ্বাসযোগ্য সেই সকল ঘরোয়া প্রতিকারগুলি হাতের কাছেই প্রস্তুত রেখে দিয়েছেন।

শিশুদের মধ্যে তাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাটি অপরিণত অবস্থায় থাকে।সময়ের সাথে সাথে তাদের দেহ নানা ধরনের রোগ–ব্যাধিগুলির সাথে লড়াই করতে শিখে যায়, বিশেষকরে তারা যদি তুলনামূলকভাবে স্বাস্থ্যকর জীবনযাপনের রুটিনে থাকে।আর আপনি সেরকম একটি জায়গাতেই এসে পৌঁছেছেন! আপনার শিশুর জন্য এখন থেকে আপনি যা কিছুই করেন, তার সবকিছুই সেইসকল উপদ্রবকারী ভাইরাস, ব্যাকটিরিয়া, রোগ–জীবাণু এবং অন্যান্য ক্ষতিকারক অণুজীবগুলির বিরুদ্ধে ভবিষ্যতে লড়াই করার ক্ষেত্রে তাকে যথেষ্ট শক্তিশালী রাখার জন্য! আসুন এবার নজর দেওয়া যাক আপনার শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী রাখার সর্বোত্তম উপায়গুলির দিকে।

১। বেশী ফল এবং শাক–সব্জিঃ- প্রতিদিন আপনার সন্তানকে চীজে ভরা ক্রীমি পিৎজা আনন্দের সাথে সাগ্রহে উপভোগ করতে দেখে আপনি যতটা খুশী হন, তা তার পরবর্তী জীবনে প্রাপ্তবয়স্ক হয়ে ওঠার সাথে সাথে তাকে ততটাই অস্বাস্থ্যকর জীবনযাত্রার দিকে ঠেলে দেয়।যদিও সে এখনও খুব অল্প বয়সী, তাই জীবনের প্রথম থেকেই ফল এবং শাক–সব্জির উপকারিতাগুলির প্রতি তার আকর্ষণ বৃদ্ধি করতে সেগুলির সাথে তার পরিচয় করান।গোড়া থেকেই ডায়েটের মধ্যে প্রচুর ফলমূল, শাক–সব্জি রেখে তাকে খাওয়ালে তা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই তার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রাখবে।কমলালেবু এবং স্ট্রবেরির মতো মরশুমি ফলগুলি ভিটামিন সি দ্বারা পরিপূর্ণ যা আপনার বাচ্চাকে সর্দি–কাশির মতো নানাবিধ সংক্রমণ ও শীতের রুক্ষতার হাত থেকে রক্ষা করার জন্য অপরিহার্য।
২। তাকে ঘুমাতে দিনঃ- একটি শিশুকে ঘুম পাড়ানোর চেষ্টা আপনার কাছে একটা দুঃস্বপ্ন হয়ে উঠতে পারে, বিশেষ করে সে যদি সদ্য হাঁটতে শেখা একজন টডলার পদাধিকারী হয়ে থাকে। যাইহোক, এই শিল্পেও আপনি অবশ্যই দক্ষ! ঘুমের বঞ্চনা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার মাত্রা সত্যিই ভীষণভাবে কমিয়ে দিতে পারে, যা আপনার শিশুকে সহজেই অসুস্থ হয়ে পড়ার ক্ষেত্রে ঝুঁকিপ্রবণ করে তোলে।কম ঘুমের সাথে শীতের ঠাণ্ডা লেগে যাওয়ায় অচিরেই আপনার শিশু হাঁচি দিতে শুরু করে! ভিক্স বেবিরাবের মতো একটি প্রশংসনীয় সমাধান ব্যবহার করার চেষ্টা করুন যা আপনার শিশুকে ময়েশ্চারাইজ, প্রশান্ত এবং শিথিল করতে সহায়তা করে।ভিক্স বেবিরাবের সাথে মৃদু স্ট্রোকগুলি এবং এর প্রশমনকারী সুগন্ধটি শিশুকে আরামে রাখে এবং স্বাচ্ছন্দ্যে ঘুমাতে সহায়তা করে।
৩। স্তন্যদানঃ- আপনার ছোট্ট শিশুটি যদি এখনও বুকের দুধ খাওয়ানোর পর্যায়ে থাকে, তবে অনাক্রম্যতা বাড়ানোর জন্য বুকের দুধের মতো ভাল আর কিছুই কাজ করে না। মায়ের বুকের দুধ শুধুই বাচ্চাকে পর্যাপ্ত পরিমাণে পুষ্টি এবং অন্যান্য আরও উপকারিতা সরবরাহ করে না, এটি এমনকি আবার আপনার শিশুর অসুস্থতাও নিরাময় করে।মায়ের বুকের দুধের সূত্রটি শিশুর দেহে অ্যান্টিবডি তৈরি করতে পরিবর্তিত হয় যা আপনার শিশুর অসুস্থতার বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য অত্যন্ত প্রয়োজন হতে পারে।
৪। অভ্যাসটি বদলে ফেলুনঃ- অবশ্যই সিগারেট খাওয়ার অভ্যাসের কথা বলা হচ্ছে।আপনাকে একথা স্মরণ করানোর জন্য আমাদের মধ্য থেকে একজন প্রতিনিধি থাকা দরকার, তবে আপনার সন্তানকে এই পরোক্ষ ধোঁয়ার থেকে দূরে রাখুন।সিগারেটের ধোঁয়ায় 4000 এর বেশী টক্সিন থাকে, আর না, আমরা ভুল করে শেষে আরও একটি 0 অতিরিক্ত বা কম বসাই নি তা কিন্তু নয়! আপনার সন্তানের প্রাকৃতিক ডিটক্সিফিকেশন সিস্টেমটি অত্যন্ত অপরিণত, যার অর্থ হল এই ধোঁয়া তার তন্ত্রের মধ্যে সরাসরি প্রবেশ করে এবং তার ফলে অ্যাজমা, ব্রঙ্কাইটিস, নানাবিধ সংক্রমণ এবং এমনকি এসআইডিএস পর্যন্ত হতে পারে।
৫। রক্ষা করুনঃ- লড়াইয়ের জন্য জীবাণুগুলির সাথে কোনওভাবে যোগাযোগ না হওয়ার সময়েই যে অনাক্রম্যতা বা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতি ঘটে এমনটা কিন্তু সত্যি নয়, এটি আপনার সন্তানের অনাক্রম্যতা বাড়ানোর বিকল্প উপায়গুলি চেষ্টা করার সময় তা জীবাণুগুলিকে দূরে রাখার কাজ করে।মৌলিক স্বাস্থ্যবিধি কখনই নিষ্ফল হয় না, তাই নয় কি? হাতমোছাগুলি হাতের নাগালে রাখুন এবং নিশ্চিত করুন যে আপনার সন্তানের হাত যেন সর্বদা পরিষ্কার থাকে এবং কোনওরকম নোংরা–ময়লা তার মুখে ও পেটে প্রবেশ না করে!

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *